৬-১ – অবজেক্টিভ-সি (Objective-C) নাকি সুইফ্ট (Swift) ?

Standard

এটি হচ্ছে আমাদের চলতি “বাংলায়- অবজেক্টিভ-সি, সুইফ্ট এবং iOS অ্যাপ ও গেম ডেভেলপমেন্ট” সম্পর্কিত সিরিজ পোস্ট ও প্রকাশিতব্য বইয়ের ষষ্ঠ সেকশন (কিছু সাধারণ প্রশ্ন ও উত্তর) এর প্রথম চ্যাপ্টার।

ভূমিকাঃ
আপনি যদি Apple এর WWDC (Worldwide Developer’s Conference) সম্পর্কে মোটা মুটি অবগত থাকেন অথবা ইনফরমেশন টেকনোলজি সম্পর্কিত  আন্তর্জাতিক খবর গুলো খেয়াল করে থাকেন, তাহলে জেনে থাকবেন যে Apple তাদের WWDC 2014 ইভেন্টে সবচেয়ে চমকপ্রদ যে আবিষ্কারটির ঘোষণা দিয়েছে তা হচ্ছে তাদের তৈরি সম্পূর্ণ নতুন একটি প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের খবর। যার নাম Swift. তারা চায় তাদের ভবিষ্যৎ iOS এবং OSX অ্যাপ্লিকেশন গুলো এই ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়েই ডেভেলপ করা হোক যাতে করে এই প্ল্যাটফর্মের অ্যাপ গুলোর পারফরমেন্স আরও ভালো হয়।
এটাকে তারা বলছে, দ্রুতগতি সম্পন্ন, আধুনিক, নিরাপদ ও ইন্টার‌অ্যাক্টিভ একটি ল্যাঙ্গুয়েজ। অন্যান্য ল্যাঙ্গুয়েজের মত অনেক অনেক জনপ্রিয় ফিচার এই ল্যাঙ্গুয়েজে যুক্ত আছে। এর ডিজাইন এমন ভাবে করা হয়েছে যাতে সিনট্যাক্স আরও সহজ হয় এবং iOS ও OSX ডেভেলপমেন্ট শুরু করতে নতুনদের বাধা আরও কম হয়। এমনকি আসছে সেপ্টেম্বর, ২০১৪ তে যে Xcode 6 লঞ্চ হতে যাচ্ছে তার সঙ্গে Playground নামের একটি ফিচার থাকছে যার মাধ্যমে বিভিন্ন কোড, প্রোগ্রামিং লজিক এবং ক্যালকুলেশনের লাইভ প্রিভিউ দেখা যাবে পুরো প্রোগ্রাম রান না করেই। অর্থাৎ Apple বরাবরই ডেভেলপার ফ্রেন্ডলি একটা ডেভেলপমেন্ট প্ল্যাটফর্ম দেয়ার ব্যাপারে সবসময় গুরুত্ব দিয়েছে যারই বহিঃপ্রকাশ হিসেবে Swift এর জন্ম বলতে পারেন। অতএব, ভয় না পেয়ে এর কাছ থাকে ভালো কিছুই আশা করতে পারেন নতুন এবং পুরনো iOS এবং OSX ডেভেলপারেরা।

আমি এই প্ল্যাটফর্মে নতুন, আমার কি এখন অব্জেক্টিভ-সি অথবা সুইফ্ট নাকি দুটো ল্যাঙ্গুয়েজ-ই শেখা উচিত?
প্রথমত, সুইফ্ট (Swift) একটি নতুন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ, আর তাই এটাতে আরও নতুন নতুন ফিচার যুক্ত হওয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন বাগ ফিক্সিং চলতেই থাকবে সামনের অন্তত এক দুই বছর। আর তাই Apple এটার ব্যাপারে প্রচার চালিয়ে যাবে ঠিকই কিন্তু আপনাকে বাধ্য করবে না iOS এর অ্যাপ শুধুমাত্র Swift এ করার জন্য। আর অন্যদিকে অবজেক্টিভ-সি রাতারাতি বন্ধও হয়ে যাবে না।
দ্বিতীয়ত, ইতোমধ্যে Apple অ্যাপ স্টোরে ১০ লাখেরও বেশি অ্যাপ্লিকেশন আছে যেগুলো অবজেক্টভ-সি তে করা এবং ওয়েবে কয়েক লাখ জনপ্রিয় লাইব্রেরি, ফ্রেমওয়ার্ক ওপেন সোর্স টুলস ও প্রজেক্ট আছে যেগুলোও অবজেক্টিভ-সি তে ডেভেলপ করা। আর তাই এগুলোর এনহ্যান্সমেন্ট, বাগ ফিক্সিং এবং আপগ্রেড চলবে আরও অনেক দিন আর তার জন্য অবশ্যই অব্জেক্টিভ-সি তে অভিজ্ঞ ডেভেলপার বা প্রোগ্রামারের প্রয়োজন থাকছেই।
তৃতীয়ত, Swift এবং iOS 7,8 সাথে Xcode 6 এমন ভাবে প্রস্তুত আছে যে আপনি একটি প্রোজেক্টে একি সাথে অবজেক্টিভ-সি এবং সুইফ্ট ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করতে পারেন কোন রকম বাড়তি ঝামেলা ছাড়াই। আর এই যুগপৎ বিদ্যমানতা এটাই প্রমাণ করে যে, সুইফ্ট একবারেই অবজেক্টিভ-সি এর জায়গা দখল করে নিচ্ছে না। আরও দেখতে পারেন এখানে

আর তাই, যদি আপনি কোন iOS ডেভেলপার কোম্পানিতে জয়েন করতে চান অথবা নিজে থেকেই এই মার্কেটে অ্যাপ লঞ্চ করতে চান আপনাকে দুটো ল্যাঙ্গুয়েজেই সম্যক ধারনা নেয়া খুবি গুরুত্বপূর্ণ।

আমি বেশকিছু দিন ধরেই অবজেক্টিভ-সি তে অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট এর কাজ করে আসছি কিন্তু এখন কি আমি একজন কেবলই নতুন শিক্ষানবিস?
একদম না। চিন্তা করে দেখুন, আপনি ইতোমধ্যে Xcode, Cocoa এবং Cocoa Touch এর বিভিন্ন API এবং অবজেক্টিভ-সি তে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন যার মাধ্যমে চলছে কয়েক লাখ অ্যাপ – তার তুলনায় Swift শেখা কিছুই না। বরং আপনি আপনার অভিজ্ঞতার ভাণ্ডারে নতুন একটি জিনিষ যুক্ত করতে যাচ্ছেন মাত্র। অন্যদের থেকে তার মানে আপনি সিংহ ভাগ এগিয়ে থাকছেনই সব সময়।

সুইফ্ট দিয়ে ডেভেলপমেন্টের সুবিধা কি?
Apple এর মতে এটা ৩০ বছর বয়সী Objectiv-C এর চেয়ে অনেকটাই আধুনিক। আর তাই এতে প্রোগ্রামারদের অনেক প্রিয় কিছু ফিচার যেমন namespacing, optionals, tuples, generics, type inference ইত্যাদি থাকছে যা অবশ্যই সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টকে আরও বেশি যুগোপযোগী আর গুনমান সম্পন্ন করবে।
অন্যদিকে এই ল্যাঙ্গুয়েজের অবজেক্ট সর্টিং, এক্সিকিউশন সহ আরও কিছু বিষয়ে টাইম কমপ্লেক্সিটি অনেক কম।

কোথায় শেখা শুরু করবো?
সবসময় নতুন কিছু শুরু করতে বা ওই বিষয়ে জানতে সেটার অফিসিয়াল সোর্স থেকেই দেখে নেয়া উচিত। যেমন নিচের সোর্স দুটি হতে পারে সঠিক দিক নির্দেশনাঃ

আর আমরা তো আছিই। আমাদের এই সিরিজের এবং সম্ভাব্য বইয়ের দ্বিতীয় সেকশনেই থাকছে বাংলায় ব্যাসিক সুইফ্ট লার্নিং এর উপর ১০টির বেশি চ্যাপ্টার। সিরিজের সব পোষ্ট গুলোর এবং প্রিন্টেড বইয়ের আপডেট পেতে লাইক দিয়ে রাখুন আমাদের ফেসবুকে ফ্যান পেজে

আমাদের ব্লগ পোস্ট গুলোর চেয়ে অনেক বেশি বিস্তারিত আলোচনা, বিশ্লেষণ এবং কোড এক্সাম্পল থাকবে প্রিন্টেড বইয়ে।

পরের চ্যাপ্টারঃ পরের চ্যাপ্টারে থাকবে একটি সাধারণ প্রশ্ন যেটা অনেকেরই মনে জমে থাকে, “iOS এবং OSX এর অ্যাপ ডেভেলপমেন্টের জন্য Macbook, iMac, Mac mini অর্থাৎ Apple গ্যাজেট বাধ্যতামূলক কিনা” এর উপর আলোচনা এবং কিছু বিশ্লেষণ ও অবশ্যই কিছু বিকল্প ব্যবস্থার কথা।

Advertisements

3 thoughts on “৬-১ – অবজেক্টিভ-সি (Objective-C) নাকি সুইফ্ট (Swift) ?

  1. Yeah I agree with you, very nice comparison. And I guess, Obj-C, C, C++ never will be shut down from iOS app development. iOS is a good platform, because in many cases people directly write code on C and C++. And I think, a person should have knowledge Obj-C first, because still all the 3rd party libraries are developed using Obj-C, so if a new comer doesn’t know Obj-C he will face trouble.

    So first learn Obj-C, then got enough time learn Swift. (my suggestion).

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s